ডেনমার্ক কেন পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী দেশ?

গ্রীষ্মকালীন চেয়ার, ডেনমার্ক


গত কয়েকবছরে দেখা যাচ্ছে বিশ্ব সুখ দিবস উপলক্ষে প্রদেয় রিপোর্টে সবচেয়ে সুখী দেশের তালিকায় ডেনমার্কের অবস্থান এক নম্বরে। ২০১৩, ২০১৪ এবং ২০১৬ তে ওরা এক নম্বরেই আছে। সবার মনে এই প্রশ্ন জাগা স্বাভাবিক কি আছে ডেনমার্কে যা অন্য দেশে নেই। এই রিপোর্ট করা হয়েছে স্বাস্থ্য সুবিধা, পারিবারিক সম্পর্ক, কাজের নিরাপত্তা, রাজনৈতিক স্বাধীনতা এবং সরকারী দুর্নীতির ভিত্তিতে। দেখা যাক কারণগুলো-


কাজ এবং জীবনের ভারসাম্য

ডেনমার্কের চাকরিজীবীদের সপ্তাহে ৩৭ ঘন্টা কাজ করতে হয় এবং বছরে ৫ সপ্তাহ ছুটি কাটাতে পারে। এই ছুটি কাটাতে ওরা সামাজিকতা, খেলাধুলা, স্থানীয় থিয়েটার ক্লাব এইসব করে কাটায়। ডেনমার্কের লোকেরা কাজ শেষে ছেলেমেয়েদের নিয়ে আরামদায়ক রাতের খাবার খেতে যায়।

অবসর সময় এবং “হিগি” শিল্প

অবসর সময়টা ওরা সামাজিকভাবে একত্রিত হয়ে কাটায়। পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে একত্রিত হয়। শীতের “hygge” এর ক্ষেত্রে আগুনের(ফায়ারপ্লেস) পাশে বসে কাটায়। এই হিগি বা, হাইগি বছরের যেকোন সময়েই আনন্দদায়ক।
কম চাওয়ার মানসিকতা

সমতা, আমি কি হনুরে না ভাবা

একটা ঐতিহাসিক তত্ত্ব “jante law” তে ওরা বিশ্বাসী। এই তত্ত্ব অনুযায়ী “তুমি অন্য কারো চেয়ে সেরা নও” মানুষের সমতার ক্ষেত্রে এই বিশ্বাস খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার কর্মক্ষেত্র কি সেটা নিয়ে ডেনমার্কে কেউ মূল্যায়ন করবে না, বাংলাদেশের অবস্থাটা ভাবুন। খুব সাধারণ বিষয়গুলোও ওরা উপভোগ করে।

ওরা সম্পদশালী এবং সমতায় বিশ্বাসী

ছেলে, মেয়ে সবারই ক্যারিয়ার আছে। ট্যাক্স খুব বেশী, যার ফলে সরকারের কোষাগারে টাকাও যথেষ্ট। চিকিৎসাসেবা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনাও সেখানে ফ্রী অথবা, কোন কোন ক্ষেত্রে ফ্রী এর কাছাকাছি। বেকারেরা ৭ বছর বেকার ভাতা পায়। 

নিরাপত্তা যা আমাদের দেশে প্রায় অনুপস্থিত

সরকার, কাজের জায়গা, পুলিশ, প্রতিবেশী, সরকারী সুযোগ-সুবিধা সব কিছুর উপর ওদের বিশ্বাস আছে। বাংলাদেশে আমরা এগুলোর কোনটাকে বিশ্বাস করি না। আর কারো বিশ্বাস অর্জন করতে হবে এই মাথাব্যথাটাও নেই। 
ওরা বাইসাইকেল পছন্দ করে। গাড়ী কেনার সামর্থ্য থাকলেও ওরা সাইকেলে ঘুরে বেড়ায় স্বাস্থ্যকর আর পরিবেশের জন্য ভাল বলে।আমাদের দেশের লোকেরা বাইসাইকেলে চড়তে লজ্জা পায়। 

রিপোর্টটা জাতিসংঘের, আমার মনে হয় মাণদন্ড অনুযায়ী ভাল রিপোর্ট। কাউকে এর বিরোধীতা করতে এখনো দেখিনি। আপনার মতামত প্রকাশের জন্য নিচের কমেন্ট বক্সে লিখে প্রকাশ করুন।

http://adhitzads.com/843469

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s